বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ বিস্তারের সাথে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই


বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ বিস্তারের সাথে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম গত ২৯ এপ্রিল দৈনিক যুগান্তরের নিকট প্রদত্ত বক্তব্যে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে যে সব অসত্য মন্তব্য করেছেন তার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক এমপি হামিদুর রহমান আযাদ আজ ৩০ এপ্রিল প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “পুলিশের সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে যে সব অসত্য মন্তব্য করেছেন তার কোন ভিত্তি নেই। জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন করার লক্ষ্যেই তিনি সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত মন্তব্য করেছেন। তার এ ধরনের অসত্য মন্তব্যে আমরা বিস্মিত হয়েছি। 

পুলিশের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলামের মন্তব্যের জবাবে আমি স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই যে, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ বিস্তারের সাথে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই। জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবির জঙ্গিবাদকে সব সময়ই ঘৃণা করে থাকে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে নিহত জঙ্গি রফিকুল ইসলাম আবু ও তার স্ত্রী সুমাইয়া খাতুন এবং তাদের পরিবারের সাথে জামায়াতে ইসলামীর কোন সম্পর্ক নেই। জেএমবির জঙ্গি নূরুল ইসলাম মারজান ও রায়হান কবির ওরফে তারেক কখনো ইসলামী ছাত্রশিবির করত না। যে সব জঙ্গি নিহত হয়েছে এবং গ্রেফতার হয়েছে তাদের কারো সাথে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের সংশ্লিষ্টতার কথা আজ পর্যন্ত কেউই প্রমাণ করতে পারেনি।
তাই জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে মিথ্যা আজগুবি বক্তব্য প্রদান করা থেকে বিরত থাকার জন্য আমি পুলিশ কর্মকর্তা মনিরুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”